Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

খ) কার্যক্রমের সংক্ষিপ্ত বর্ণনাঃ-

·        বাজার দর মনিটরিং ও তৎসংক্রান্ততথ্য প্রতিবেদন উর্দ্ধতন দপ্তরে প্রেরণ।

·        দুর্যোগ মোকাবেলায় খাদ্যশস্যের আপদকালীন মজুদ গড়ে তোলা এবং খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

·        জেলায় অবস্থিত খাদ্য গুদামসমূহের মজুদ ও সরবরাহ সচল রাখা।

·        জেলার আওতাধীন ওএমএস, শহর ফেয়ার প্রাইস কার্যক্রম পরিচালনা করা।

·        পূনঃপ্রবর্তিত The East Bengal (Food Stuffs) Price Control and Anti-Hoarding Order, 1953এর বাসত্মবায়নে পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ী, মেজর ও কম্প্যাক্ট ময়দাকল, রোলার ময়দাকল, আটাচাক্কি, অটোমেটিক রাইস মিল, মেজর রাইস মিল, হাস্কিং রাইস মিল এবং ওএমএস ডিলারগণকে এই আদেশের আওতায় Food Grainলাইসেন্স গ্রহণে উদ্বুদ্ধকরণ এবং লাইসেন্স প্রদানে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানকল্পে লাইসেন্স প্রাপ্তির নিয়মাবলী, ফি এর পরিমাণ, কাগজপত্রাদির তালিকা এবং নবায়নের ক্ষেত্রে নিয়মাবলী/ফি এর পরিমাণ নোটিশ বোর্ডে উপস্থাপন।

·        চালকল আদেশ ২০০৮ অনুযায়ী জেলাধীন চালকলের লাইসেন্স প্রদানের নিয়মাবলী/ তারিখ/ ফি এর পরিমাণ/ নবায়নের নিয়মাবলী/ তারিখ/ ফি এর পরিমাণ উল্লেখপূর্বক নোটিশ বোর্ডে উপস্থাপন করা ও যাবতীয় কার্যাদি সম্পাদন।

·        খাদ্যশস্য সংগ্রহ বিনির্দেশের একটি প্যারামিটার/সংগ্রহের পরিমাণ/ ক্রয়মূল্য/ ক্রয়কেন্দ্র যথাযথভাবে প্রচার ও নোটিশ বোর্ডে উপস্থাপন এবং সংগ্রহ কার্যক্রম বাসত্মবায়নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ।

·        বিভিন্ন মৌসুমে সরকারী সংগ্রহ বাসত্মবায়নের লক্ষ্যে চালকল মালিকদের সঙ্গে চুক্তির তারিখ, চুক্তির সময়, চুক্তির জন্য প্রযোজ্য কাগজ ও দলিল পত্রাদির বিবরণ নোটিশ বোর্ডে উপস্থাপন করা ও যাবতীয় কার্যাদি সম্পাদন করা।

·        সংগ্রহের স্বার্থে খালি জায়গা সৃষ্টির লক্ষ্যে এবং গুদামের মজুদ ও সুষ্ঠু বিলি-বিতরণ অব্যহত রাখতে জেলার অভ্যমত্মরে খাদ্যশস্যের চলাচল সূচী জারী ও তদারকী করা।

·        খাদ্য গুদামে খাদ্যশস্যের মজুদসহ চলাচল সূচী প্রদান ও তদারকী করা।

·        খাদ্য মজুদের সাপ্তাহিক, পাক্ষিক ও মাসিক প্রতিবেদন উর্দ্ধতন দপ্তরে প্রেরণ।

·        জেলা খাদ্য প্রশাসনের সার্বিক কার্যাবলী নিয়ন্ত্রণ করা।

·        জেলাধীন বিভিন্ন খাদ্য গুদামে শ্রম ও হসত্মার্পণ ঠিকাদার এবং অভ্যমত্মরীন পরিবহন ঠিকাদার নিয়োগ করা।

·        জেলার অভ্যমত্মরে কর্মরত ৩য় ও ৪র্থ শেণীর কর্মচারীগণের পেনশনসহ আনুষঙ্গিক বেতন-ভাতাদি প্রদান এবং তাদের বদলী ও পদায়ন করা এবং জেলায় নিয়োজিত খাদ্য বিভাগীয় সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীর কার্যাবলী তদারকী।

·        সময়ে সময়ে জারীকৃত উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আদেশ প্রতিপালন করা।

জেলার অধীনস্থ অফিসসমূহে সরকার গৃহীত কার্যক্রম বাসত্মবায়নে নিবিড় মনিটরিং করা এবং কার্যক্রম বাসত্মবায়নে সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করা।

গ) আওতাধীন অফিস সমূহের নামঃ-

১। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, রংপুর সদর,রংপুর।

২। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, বদরগঞ্জ, রংপুর।

৩। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, মিঠাপুকুর, রংপুর।

৪। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক,পীরগঞ্জ, রংপুর।

৫। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, তারাগঞ্জ, রংপুর।

৬। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, গংগাচড়া,রংপুর।

৭। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, কাউনিয়া, রংপুর।

৮। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক, পীরগাছা, রংপুর।

ঘ) আওতাধীন অফিস সমূহের কার্যক্রমঃ-

™খাদ্যশস্যের দৈনিক বাজার দর সংগ্রহপূর্বক উর্দ্ধতন দপ্তরে প্রেরণ ও নোটিশবোর্ডে লিপিবদ্ধ করা;

™বিভিন্ন দপ্তরের চাহিদা অনুসারে চাহিদা পত্র প্রাপ্তির সাথে সাথে তা পরীক্ষামেত্ম বিলি আদেশ জারী করা;

™কোন খাতে কত বিলি আদেশ জারী হয়েছে তা নোটিশ বোর্ডে প্রদান করা;

™ওএমএস বরাদ্দ/বিলির আদেশ পরিমাণ এবং বিক্রয়মূল্য নোটিশ বোর্ডে লিপিবদ্ধকরা;

™ওএমএস খাতে মূল্য জমা চালান প্রাপ্তির পর তা ঐদিনেই বিলি আদেশ জারী করা;

™সংগ্রহ বিনির্দেশ অনুযায়ী উপজেলার জন্য সংগৃহীতব্য খাদ্যশস্যের পরিমাণ ও ক্রয় মূল্য ও ক্রয়ের স্থান নির্ধারণপূর্বক তা যথাযথভাবে প্রচার ও নোটিশ বোর্ডে উপস্থাপন;

™অধীনস্থ কর্মচারীদের যাবতীয় সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করণের কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করা এবং তাঁদেরকে দায়িত্ব পালনে উদ্বুদ্ধ করা।

™সময়ে সময়ে জারীকৃত উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আদেশ প্রতিপালন করা এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট রিপোর্ট রিটার্ণ প্রেরণ নিশ্চিতকরণ।

™     খাদ্য মজুদ সংক্রামত্ম উর্দ্ধতন দপ্তরে সাপ্তাহিক ও পাক্ষিক প্রতিবেদন প্রেরণ।

ঙ) আওতাধীন গুদামসমূহের ধারণ ক্ষমতাঃ-

১) রংপুর এলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-    ৬০০০.০০০ মেঃটন।

২) বদরগঞ্জএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-       ২৫০০.০০০ মেঃটন।

৩) শঠিবাড়ীএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-      ১৫০০.০০০ মেঃটন।

৪) পীরগঞ্জএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-        ২০০০.০০০ মেঃটন।

৫) ভেন্ডাবাড়ীএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-      ১৫০০.০০০ মেঃটন।

৬) তারাগঞ্জএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-      ১৫০০.০০০ মেঃটন।

৭) গংগাচড়াএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-      ১৫০০.০০০ মেঃটন।

৮) কাউনিয়াএলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-     ১৫০০.০০০ মেঃটন।

৯) পীরগাছা এলএসডি, কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা-     ১৫০০.০০০ মেঃটন।

     সর্বমোট কার্যকরী ধারণ ক্ষমতা  =       ২০০০০.০০০ মেঃটন।

চ) গুদামসমূহের কার্যক্রমঃ-

·        চাহিদাপত্র প্রাপ্তির পর ২৪ ঘন্টার মধ্যে বিলি আদেশ (ডিও) এর বিপরীতে খাদ্যশস্য সরবরাহ নিশ্চিতকরণ;

·        প্রতিদিনের মজুদ হিসাব সংশ্লিষ্ট বোর্ডে লিপিবদ্ধকরণ;

·        চলাচলসূচী জারীর ২৪ ঘন্টার মধ্যে সূচীর বাসত্মবায়ন;

·        বিনির্দেশ মোতাবেক খাদ্যশস্য সংগ্রহ করা;

·        খাদ্যশস্যের সংগ্রহ বিনির্দেশের প্রতিটি প্যারামিটার সুষ্পষ্টভাবে উল্লেখপূর্বক একটি আলাদা বোর্ডে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা;

·         খাদ্যশস্য সংগ্রহের সময়সীমা উল্লেখ পূর্বক তা নোটিশ বোর্ডে টানিয়ে দেয়া;

 

এছাড়া খাদ্য বিভাগ মূলত খাদ্য ব্যবস্থাপনা সংক্রান্তকার্যক্রম গ্রহন করে থাকে। সরকার খাদ্য বিভাগের মাধ্যমে কৃষকেদর উৎপাদিতধান ও গমের ন্যায্য মূল্য প্রদান করার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা পরিচালনা করে।খাদ্যশস্য মজুদের মাধ্যমে আপদকালীন সময়ে বাজার স্থিতিশীল রাখা এবংপ্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময় খাদ্য সহায়তা দেওয়াই এই বিভাগের মুল লক্ষ্য।